রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
স্বরূপকাঠিতে বিক্রি হওয়া শিশু ঢাকা থেকে উদ্ধার স্বরূপকাঠিতে দম্পত্তির ১৮দিনের শিশু কন্যা বিক্রি বাগেরহাট জেলা এনপিপির মতবিনিময় সভা স্বরূপকাঠি ডিজিটাল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের নির্মাণ কাজ এর শুভ উদ্বোধন  নেছারাবাদে স্কুল শিক্ষার্থীদের করোনা ভাইরাসের টিকা দেয়া শুরু মৎস্যজীব লীগের আহবায়ক স্বপন কুমার দেউরীর নেতৃত্বে বিশাল শোডাউন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হতদরিদ্র মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেনমন্ত্রী –শ,ম রেজাউল করিম নেছারাবাদে নৌযান শ্রমিক লীগের পরিচয়ে চাঁদাবাজি লটারিতে স্কুলে ভর্তি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের ক্ষোভ পিরোজপুরের নেছারাবাদের মাহফুজ (১৫) হারিয়ে গেছে।দৈনিক শীর্ষ সংবাদ

লটারিতে স্কুলে ভর্তি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের ক্ষোভ

আনোয়ার শীর্ষ সংবাদ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময়ঃ বুধবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ২০ জন দেখেছেন

সরকারি ও বেসরকারি স্কুলে ভর্তির ক্ষেত্রে সরকারি যে নির্ধারিত নীতিমালা রয়েছে সেই নীতিমালা অনুশরন করেই ২০২২ সালে স্বরূপকাঠী সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে লটারির মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের ভর্তি করা হয়। ভর্তি হতে না পেরে মেধাবী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এই পদ্ধতি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার বেলা ১২টার সময় ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে ভর্তি ইচ্ছুক ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকদের উপস্থিতিতে নেছারাবাদ ঊপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মোশারেফ হোসেন উপস্থিত থেকে এ লটারির কার্যক্রমটি পরিচালানা করেন।এ সময় উপস্থিত সকল অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, স্কুলে ভর্তির ক্ষেত্রে সরকারি নির্ধারিত যে নীতিমালা রয়েছে সেই নীতিমালা অনুশরন করেই লটারির মাধ্যমে ভর্তি করা হবে। যাদের নাম লটারেিত উঠবে সুধু তারাই স্বরূপকাঠী সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারবে।

লটারি অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রধান শিক্ষক আতিকুল্লাহ তিনি জানান,আমাদের স্কুলে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ১৭৮জন এবং স্কুলে কোটা ২টা ক,খ,গ শাখায় লটারির মাধ্যমে মোট ১৮০জন ছাত্রছাত্রীকে ভর্তি করাতে পারবো।তবে ভর্তির জন্য আবেদন পড়েছিল ২৫১টি। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন নেছারাবাদ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ফিরোজ কিবরিয়া, শিক্ষা কর্মকর্তা,ও গণ্যমান্য রাজনৈতিক ব্যাক্তিবর্গ।

তবে লটারিতে ভর্তি হতে না পেরে অনেক ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবক খুশি হতে পারেনাই।চলছে ভর্তির পক্ষে-বিপক্ষে নানা আলোচনা সমালোচনা । কেউ বলছেন সঠিক প্রক্রিয়া, কেউবা বলছেন মেধা নষ্টের কথা।লটারির কারণে অত্র অঞ্চলের মধ্যে একটা ভালো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মেধাবি ছাত্রছাত্রীরা ভর্তি হতে না পেরে হতাশ হয়ে পড়েছে।

শহীদ স্মৃতি ডিগ্রি কলেজের সিনিয়র সহকারী অধ্যাপক মাহামদুর রহমান খান বলেন, প্রক্রিয়াটি ভর্তি বাণিজ্য বন্ধে যুগান্তকারী মনে হলেও গ্রামপর্যায়ে যথাযথ হয়নি। সিদ্ধান্তটি শহুরে অভিভাবকদের যতটুকু স্বস্তি দিয়েছে তারচেয়েও অধিকতর কাঁদিয়েছে গ্রামের কোমলমতি মেধাবি শিক্ষার্থীর পাশাপাশি অভিভাবকদেরকেও। ভাগ্যের কাছে হেরে গিয়ে অভিভাবকরা এসব ছোট ছোট বাচ্চাদেরকে রিমোট কোন স্কুলে ভর্তি করানোর সাহসই পাচ্ছেন না। ফলে বাচ্চা মেধাবি হওয়া সত্ত্বেও লটারির পরিনতি তাঁদেরকে হতাশ করছে।শিক্ষার্থীর মেধার পরিমাপক লটারি হতে পারেনা, যোগ্যতার বিচারেই মেধার সঠিক মূল্যায়ন হওয়া উচিৎ। যোগ্যতার পরিবর্তে ভাগ্য পরীক্ষায় কোমলমতি অনেক শিক্ষার্থীর মেধা অংকুরেই বিনষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।লটারির বিচারে আগামির প্রশাসক,বিচারক, চিকিৎসক কিংবা শিক্ষক হওয়ার সুযোগ থাকতে পারেনা। সুতরাং অন্তত ক্যাচম্যান্ট এড়িয়ার মেধাবি অথচ ভাগ্যের কাছে অসহায় বাচ্চাদের মনকষ্ট ও সুন্দর ভবিষ্যৎ ধ্বংস না হওয়ায় স্বার্থে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি সুবিবেচনা করবেন বলে সকলের বিনীত দাবি।

 

শেয়ার করুন

একই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 dailyshirshosongbad
Developed By NCB IT