শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ০৮:৫৫ পূর্বাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীর ঘর পেয়ে মহা খুশি মোরা। দৈনিক শীর্ষ সংবাদ

আনোয়ার শীর্ষ সংবাদ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময়ঃ সোমবার, ৫ জুলাই, ২০২১
  • ১৮০ জন দেখেছেন
মোরা এখন মহা খুশি” দু’হাত তুলে দোয়া করছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য।ঘর পেয়ে খুশিতে আত্মহারা লোকগুলো তাদের মনের কথা সাংবাদিকদের কাছে এভাবেই তুলে ধরেন।

রফিক হাওলাদার(৪২) ভিক্ষা করে দিনানিপাত করে জীবন যাপন করেন। সংসারে স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে। থাকতেন অন্যর দয়ায় পরের জায়গায় ঝুপড়ি ঘর তুলে। ঝড় বন্যা আসলেই তাকে পরিবার নিয়ে ছুটতে হতো নিকটস্থ কোন আশ্রয় কেন্দ্রে অথবা কারো দালান ঘরে। এ নিয়ে ভিক্ষুক রফিক খুব চিন্তায় থাকত। তাই সে সবসময় স্বপ্ন দেখত একটি টিনের চালার ঘর তোলার।

সেই ভিক্ষুক রফিক এখন একটি ঘরের মালিক থাকেন মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর দেয়া উপহার জমি সহ টিনশেড দালান ঘরে। এ যেন মেঘ না চাইতেই বৃষ্টি এমনটি মনে করছেন রফিক।মুজিবর্ষের উপহার আশ্রায়ন প্রকল্প-২ এর দ্বিতীয় পর্যায়ের ঘর পেয়ে রফিক হাওলাদার খুশিতে আত্মহারা। তিনি বলেন আল্লাহ যেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনেক হায়াত দারাস করেন। এভাবে যেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ সেবায় নিয়োজিত থাকেন।

গীতা রানি(৩৮)। ছেলে অমলকে নিয়ে বাড়ি বাড়ি ঘুরে কৃষানির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। ৮ বছর যাবত মানুষের বাড়ীতে ভাড়া থাকত।সেও এখন একটি ঘরের মালিক এভাবে কেবল রফিক হাওলাদার,গীতা রানিই নয়, সমদেকাঠির আলী হোসেন , আলী আকবর, কুড়িয়ানার সতীষ বেপারির মতো নেছারাবাদ উপজেলার ২০৪ জন হত দরিদ্র,দুস্থ ছিন্নমুল লোকেরা এখন মুজিব জন্ম শত বার্ষিকী উপলক্ষে খুজে পেয়েছেন উপযুক্ত মাথা গোজার ঠাই। তাদের পরিবারে এখন খুশির বন্যা। তারা সকলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞা জানাচ্ছেন প্রার্থনা করছেন যে যার ধর্ম মতে। একইসাথে ঘরগুলো সঠিক মানুষদের মাঝে বন্টন করার জন্য তারা কৃতজ্ঞা জানিয়েছেন নেছারাবাদ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ইউএনও) মো: মোশারফ হোসেন-কে।সার্বক্ষনিক তদারকি করার জন্য নেছারাবাদ উপজেলা পিআইও কর্মকর্তা মানস কান্তি দাসকে।
নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)মোশারেফ হোসেন জানান, প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় গৃহহীনদের জন্য ২০৪ খানা টিনশেড দালান ঘর করে দেওয়া হয়েছে। আমরা ১৬৫ খানা ঘর হস্তান্তর করেছি বাকি ঘরগুলো নির্মানাধীন। সেগুলোর নির্মান কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে।তিনি আরো জনান, উপজেলার ইউপি চেয়ারম্যান,সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বর,ইউপি সচিব এবং ইউনিয়ন তহসিলদার সহ মোট চারজনের করা তালিকা উপজেলা কমিটি যাচাই বাছাই করে প্রকৃত লোকদের হাতে এসব ঘরগুলো তুলে দেয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

একই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 dailyshirshosongbad
Developed By NCB IT