বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০২:৫২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
ড্রাগন চাষে সফলতার নতুন গল্প নেছারাবাদের চাষীদের। দৈনিক শীর্ষ সংবাদ সাম্প্রদায়ীক সম্প্রীতির বন্ধন অটুট রেখে দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে ——মৎস্য ও প্রানী সম্পদ মন্ত্রী নাদিরা বেগমের শারীরিক সুস্থতা কামনায় এনপিপির  দোয়া মোনাজাত বিনা প্রতিদ্বন্দিতার নির্বাচন গণতন্ত্রের বিকাশ নষ্ট হচ্ছে -শেখ ছালাউদ্দিন ছালু নেছারাবাদের মশারি শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে দরকার সরকারি সহযোগি।দৈনিক শীর্ষ সংবাদ আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর পরিদর্শন করেন পিরোজপুর জেলা প্রশাসক পল্লীবিদ্যুতের যন্ত্রাংশ ও শ্রমিকদের থাকার স্থান এখন স্কুল নেছারাবাদে স্কুলঘরে মটর সাইকেলের গোডাউন স্বরূপকাঠিতে মৎস্যজীবিদের সঙ্গে মত বিনিময় সভা নেছারাবাদে কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় কৃষাণ/কৃষাণীদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত 

আটঘর কুরিয়ানার পেয়ারা বাগানে দর্শনার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা উপজেলা প্রশাসনের।দৈনিক শীর্ষ সংবাদ

আনোয়ার হোসেন নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময়ঃ সোমবার, ২৯ জুন, ২০২০
  • ১৫০১ জন দেখেছেন

বরিশালের পেয়ারা খ্যাত পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ উপজেলার আটঘর কুড়িয়ানায় পেয়ারা বাগানে দর্শনার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোশারফ হোসেন মিলু।

৭০৩ হেক্টর জমির উপর আটঘর কুড়িয়ানায় পেয়ারা চাষ হয়। বাংলার আপেল নামে খ্যাত এ পেয়ারা আটঘর, কুড়িয়ানা, আতা, ভীমরুলীসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের রয়েছে পেয়ারা বাগান যা দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি হয়। প্রতিবছর এই পেয়ারা মৌসুমে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে হাজার হাজার দর্শনার্থীদের সমাগম হয়।

কিন্তু এবার দর্শনার্থীদের প্রবেশ নিষেধ করেছেন নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোশারফ হোসেন মিলু। নির্বাহী কর্মকর্তা, Uno nesarabad ফেইজবুক আইডি থেকে এক বিবৃতিতে জানান। বিশ্বব্যাপী কোভিড ১৯ করোনা
ভাইরাস প্রাদুর্ভাব এর কারনে জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে, পেয়ারা বাগানে দুরদুরান্ত থেকে আশা দর্শনার্থীদের প্রবেশ নিষেধ করেছেন। এখানে তিনি আরো বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারনে সরকার ইতোমধ্যে আন্তঃজেলা জন চলাচল কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করার আদেশ জারি করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় স্বাস্থ্য ঝুকির কথা বিবেচনা করে নেছারাবাদ উপজেলার আটঘর কুড়িয়না ইউনিয়নের ভাসমান পেয়রা বাজার সম্পুর্ণ স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণপূর্বক স্থানীয় জনসাধারণের জন্য সীমিত পরিসরে পরিদর্শনের জন্য উন্মুক্ত রাখা হলো। উল্লেখ যে, পেয়ারা বাগান ও ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়, আইন শৃংখলা পরিপন্থী যে কোন কার্যক্রম করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আটঘর কুড়িয়ানা ইউনিয়ন পরিষদের এর চেয়ারম্যান শেখর বাবু জানান,
করোনা ভাইরাসের কথা চিন্তা করে এবং এলাকার জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে ইতি পূর্বেই কুড়িয়ানার সকল বাগান মালিক,ব্যবসায়ী কে জানিয়ে দিয়েছি এই মৌসুমে দুর থেকে আশা কোন দর্শনার্থীদের পেয়ারা বাগানে প্রবেশ করতে দেয়া হবেনা। এজন্য সেচ্ছাসেবক টিম থাকবে,পুলিশ বাহিনী থাকবে তারা আমাদের এ কাজে সহযোগীতা করবে বলে জানান।

এদিকে কুড়িয়ানায় সদ্যগড়ে ওঠা “ন্যাচারাল টুরিজম পিকনিক পার্ক”এর অন্যতম ব্যবস্থাপক বাবু শংকর হালদার জানান,এ বছর আমার অনেক টাকা লোকসান হবে। গত বছরের পুরো আয়োজনটাই আমার ভেস্তে যাবে।প্রায় ২০/২৫ লক্ষ টাকা ব্যায় পার্কটি দর্শনার্থীদের জন্য তৈরি করেছিলাম। এ বছরের পেয়ারার মৌসমে দর্শনার্থীরা যদি আসতে পারতো তাহলে লোকসানটা পুশিয়ে নিতে পারতাম।কিন্তু আমার একার কথা চিন্তা করলে তো আর হবেনা। যেখানে পুরোদেশ আজ করোনাভাইরাস এর কারনে নাস্তানাবুদ সে খানে আমি একজন সচেতন নাগরিক হয়ে এটুক লোকসান মেনে নিতে পারবো।

তবে ভবিষ্যতে সরকার যদি আমাদের মতো ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের দিকে একটু নজর দেয় তাহলে আমরা টিকে থাকতে পারবো।
প্রকাশ্য যে, নেছারাবাদ উপজেলায় পেয়ারা চাষ হয় ৭০৩ হেক্টর জমিতে। স্বরূপকাঠী উপজেলার পেয়ারা বাগানকে আবার ৬টি ব্লকে ভাগ করা হয়েছে। কুড়িয়ানাতে ২৮৯ হেক্টর, ধলহার ২৬০ হেক্টর, গণপতিকাঠি ৬১ হেক্টর, মাদ্রায় ৪০ হেক্টর, মুসলিমপাড়ায় ৪২ হেক্টর এবং জলাবাড়িতে ১১ হেক্টর জমিতে পেয়ার চাষ হয়ে থাকে।
এই পেয়ারা বাগানে হাজার হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থান হয়েছে।এখান থেকে প্রতি বছর কোটি কোটি টাকা আয় হয়ে থাকে ।

শেয়ার করুন

একই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 dailyshirshosongbad
Developed By NCB IT